Breaking

Tuesday, February 5, 2019

মাত্র ৫ হাজারে ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি দিল্লির একটি সংস্থার


           পাঁচ হাজারি টিভি

ü  ১৩৬৬/৭৮৬ পিক্সেলের ডিসপ্লে
ü  ১৬.৯ আনুপাতিক পর্দার হার
ü  ডায়ানামিক রেশিও ১০০০০০০:১
ü  দুটি ১০ ওয়াটের স্পিকার
ü  ৫১২ মেগাবাইটের র‌্যাম
ü  ৪ গিগাবাইটের স্টোরেজ
ü  দু’টি ইউএসবি পোর্ট রয়েছে

দেশের সবচেয়ে সস্তায় টেলিভিশন বানিয়ে রীতিমতো চমকে দিল দিল্লির একটি সংস্থা। ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভির দাম মাত্র ৫ হাজার টাকা। 
স্যামি ইনফরম্যাটিক্স নামে দিল্লির একটি সংস্থা এমন সস্তায় টিভি বানিয়েছে। গত বুধবার তাদের বানানো ৩২ ইঞ্চির এলইডি টিভি বাজারে এসেছে। যার দাম মাত্র ৮,৯৯৯ টাকা। এর পর অবশ্য ‘শিপিং কস্ট’ এবং জিএসটি রয়েছে। তবে বাড়ি পযর্ন্ত নিয়ে আসতে গ্রাহককে আরও কিছু টাকা গুনতে হবে।


ওই সংস্থার দাবি, অ্যান্ড্রয়েড প্রযুক্তির এই টিভি ভারতের বাজারে সবচেয়ে সস্তা। ‘এসএম৩২কে ৫৫০০’ মডেলেরে এইচডি এলইডি টিভিটি সমস্ত ধরনের আধুনিক অ্যাপের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া যাবে বলে সংস্থা সূত্রে জানানো হয়েছে। সংস্থা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ১৩৬৬/৭৮৬ পিক্সেলের ডিসপ্লে এবং ১৬.৯ আনুপাতিক পর্দার হার, ডায়ানামিক রেশিও ১০০০০০০:১। এই টিভিতে দুটি ১০ ওয়াটের স্পিকার রয়েছে। আরও উচ্চমানের সাউন্ড শোনার জন্য রয়েছে এসআরএস ডলবি ডিজিটাল এবং ফাইভ ব্যান্ডের ইক্যুয়ালাইজার। 

টিভি নির্মাতা সংস্থার আরও দাবি এই টিভির সমস্ত ‘স্পেয়ার পার্টস’ তথা যন্ত্রাংশ এ দেশেই তৈরি হয়েছে। অর্থাৎ এই টিভির মধ্যে ‘মেইড ইন চায়না গন্ধ নেই। সংস্থার দাবি, এই টিভির মধ্যে বিদেশি কোনও যন্ত্রাংশ নেই। বরং দেশীয় যন্ত্র ব্যবহারের ফলে ওই সব যন্ত্রাংশ তৈরির কারখানায় ২০০ লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে। যদিও সূত্রের খবর, ভিতরের যন্ত্রাংশগুলি সব দেশে তৈরি হলেও টিভির প্যানেল দক্ষিণ কোরিয়া থেকে আমদানি করা হচ্ছে।

সংস্থার ডিরেক্টর অবিনাশ মেহতা বলেন, ‘আমরা দেশের সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করেই এই টিভি বানিয়েছি। সব কিছু ঠিক থাকলে এই টিভির বাজারে দারুণ সম্ভাবনা সৃষ্টি করবে। বহু সাধারণ মানুষ বাড়িতে একটি এলইডি টিভি রাখার খোয়াব দেখেন। হয়তো দামের জন্য সকলের পক্ষে তা সম্ভব হচ্ছে না। এ বার সেই মানুষগুলি নিশ্চয়ই আমাদের টিভি কিনতে পারবেন। গ্রাম এবং শহরের বাজার ধরতেই আমাদের এই প্রচেষ্টা। আশা করছি এবার দেশের মানুষের ঘরে ঘরে ৩২ ইঞ্চির টিভি পৌঁছে যাবে। প্রশ্ন জাগে এত সস্তায় কী বাবে এই টিভি বেচে তারা কী ভাবে লাভ করবেন? অবিনাশ জানান, আমাদের পরিকল্পনাই হচ্ছে এই টিভি বিক্রি করে রাভ করা। গ্রাহক যখনই টিভি অন করবেন, কিছু বাণিজ্যিক বিজঞাপন আপনা থেকেই টিভির কোণায় ফুটে উঠবে। গ্রাহক চাইলে সেগুলি মুছেও দিতে দিতে পারেন। ওই বিজ্ঞাপন থেকে রোজগার বাড়বে আমাদের।

অবিনাশ জানিয়েছেন, তাদের এই অ্যান্ড্রয়েড টিভিতে রয়েছে ৫১২ মেগাবাইটের র‌্যাম ও ৪ গিগাবাইটের স্টোরেজ। এই টিভিতে আগে থেকেই ইনস্টল ও কনফিগার করা থাকবে ফেসবুক এবং ইউটিউবের মতো কিছু অ্যাপ। এর পর গ্রাহক তার পছন্দ অনুযায়ী গুগল প্লে থেকে অন্যান্য টিভিও এবং অডিও অ্যাপ ইনস্টল করে নিতে পারবেন। এখানে ২ টি এইচডিএমআই এবং ২টি ইউএসবি পোর্ট রয়েছে। রয়েছে একটি অডিও-ভিডিও আউটপুট এবং ইনপুট।

নিশ্চয় ভাবছেন, কোন দোকানে এই টিভি পাওয়া যাবে? না দোকানে নয় এটি কেনার প্রাথমিক শর্ত হল একমাত্র অনলাইন থেকেই কিনতে হবে। এবং সেটি কেবল মাত্র অর্ডার করা যাবে ‘স্যামি’ (Samy) অ্যাপ থেকে। সেখানে টিভির দাম দেখানো হবে ৪,৯৯৯ টাকা। 

তবে সারা দেশের যে কোনও জায়গায় ডেলিভারির জন্য ‘শিপিং কস্ট’ হিসাবে দিতে হবে ১২০০-১৮০০ টাকা। সেই সঙ্গে লাগবে ১৮ শতাংশ জিএসটি। সব মিলিয়ে এই টিভির দাম পড়বে সাত থেকে আট হাজার টাকা। উল্লেখ্য, এখন বাজারে যে সমস্ত এলইডি এইচডি টিভি পাওয়া যায়, তার দাম শুরু হয় ১০ হাজার টাকা থেকে। স্যামি ইনফরম্যাটিক্স ২০১৬ সালের স্টার্ট আপ সংস্থা। ২০১৭ সাল থেকে তারা বাজারে টিভি বিক্রি শুরু করে।

No comments:

Post a Comment